Table of Contents

প্রেম অপ্রেমের কবিতা

নিরাশার খাতে ততোধিক লোক উৎসাহ বাঁচায়ে রেখেছে;অগ্নিপরীক্ষার মতো কেবলি সময় এসে দ’হে ফেলে দিতেছে সে-সব।তোমার মৃত্যুর পরে আগুনের একতিল বেশি অধিকারসিংহ মেষ কন্যা মীন করেছে প্রত্যক্ষ অনুভব।পৃথিবী ক্রমশ তার আগেকার ছবিবদলায়ে ফেলে দিয়ে তবুও পৃথিবী হ’য়ে আছে;অপরিচিতের মতো সমাজ সংসার শত্রু  সবইপরিচিত বুনোনির মতো তবু হৃদয়ের কাছেক্রমশই মনে হয় নিজ সজীবতা নিয়ে চমৎকার;আবর্তিত হ’য়ে যায় দানবের

Read More »

ফুটপাথে

অনেক রাত হয়েছে- অনেক গভীর রাত হয়েছে;কলকাতার ফুটপাথ থেকে ফুটপাথে- ফুটপাথ থেকে ফুটপাথে-কয়েকটি আদিম সর্পিণী সহোদরার মতো                                      এই-যে ট্র্যামের লাইন ছড়িয়ে আছেপায়ের তলে, সমস্ত শরীরের রক্তে এদের বিষাক্ত বিস্বাদ স্পর্শ                                                অনুভব ক’রে হাঁটছি আমি।গুড়ি-গুড়ি বৃষ্টি পড়ছে, কেমন যেন ঠাণ্ডা বাতাস;কোন দূর সবুজ ঘাসের দেশ নদী জোনাকির কথা মনে পড়ে আমার,-তারা কোথায়?তারা কি হারিয়ে গেছে?পায়ের তলে লিকলিকে ট্র্যামের

Read More »

মনোবীজ

জামিরের ঘন বন অইখানে রচেছিলো কারা?এইখানে লাগে নাই মানুষের হাত।দিনের বেলায় যেই সমারূঢ় চিন্তার আঘাতইস্পাতের আশা গড়ে- সেই সব সমুজ্জ্বল বিবরণ ছাড়া যেন আর নেই কিছু পৃথিবীতেঃ এই কথা ভেবেযাহারা রয়েছে ঘুমে তুলীর বালিশে মাথা গুঁজে;তাহারা মৃত্যুর পর জামিরের বনে জ্যোৎস্না পাবে নাকো খুঁজে;বধির-ইস্পাত খড়্গ তাহাদের কোলে তুলে নেবে।সেই মুখ এখনও দিনের আলো কোলে নিয়ে

Read More »

আলোপৃথিবী

ঢের দিন বেঁচে থেকে দেখেছি পৃথিবীভরা আলোতবুও গভীর গ্লানি ছিল কুরুবর্ষে রোমে ট্রয়ে;উত্তরাধিকার ইতিহাসের হৃদয়েবেশি পাপ ক্রমেই ঘনালো। সে গরল মানুষ ও মনীষীরা এসেহয়তো বা একদিন ক’রে দেবে ক্ষয়;আজ তবু কন্ঠে বিষ রেখে মানবতার হৃদয়স্পষ্ট হতে পারে পরস্পরকে ভালবেসে। কোথাও রয়েছে যেন অবিনশ্বর আলোড়নঃকোনো এক অন্য পথে- কোন্‌ পথে নেই পরিচয়;এ মাটির কোলে ছাড়া অন্য

Read More »

সমুদ্রচিল

সমুদ্রচিলের সাথে আজ এই রৌদ্রের প্রভাতে    কথা ব’লে দেখিয়াছি আমি;    একবার পাহাড়ের কাছে আসে,    চকিতে সিন্ধুর দিকে যেতেছে সে নামি;    হামাগুড়ি দিয়ে ভাসে ফেনার উপরে,    মুছে যায় তরঙ্গের ঝড়ে।    দাঁড়ায়েছি শতাব্দীর ধুলো কাঁচ হাতে।। তরঙ্গের তারা খেয়ে চ’লে যায় আরো দূর তরঙ্গের পানে-    ফেনার কান্তারে    বৃষ্টির প্রথম রোদ যেইখানে    তাহার সোনালি ডানা ঝাড়ে;    যেখানে আকাশ নীল কোলাহলময়,    সমুদ্রের করিছে দূর সমুদ্র সঞ্চয়,    দিগন্ত হারায়ে যায় দিগন্তের প্রাণে।।

Read More »

জীবন সঙ্গীত

স্ট্রেচারের পরে শুয়ে কুয়াসা ফিরিছে বুঝি তোমার দুচোখেঃভয় নেই, মৃত্যু নয় কোনো এক অপদার্থ অন্যায় আলোক;তা’হ্লে কি এত লোক ম’রে যেত মশালের লালসায়- মাছির মতন?অমৃতের সিড়ি ব’লে মানুষেরা গড়িত কি এত শাদা শ্লোক। আজ মৃত্যু; এর আগে ম্যাটেডরদের মৃত্যু ছিল স্পেনে?লড়েছে বীরের মত রাঙা রৌদ্রে আপনারে সব চেয়ে হাম্বড়া জেনেখেয়েছে আঁধার রাত্রি অকস্মাৎ। তবু এক

Read More »

হেমন্ত

আজ রাতে মনে হয়সব কর্মক্লান্তি অবশেষে কোনো এক অর্থ শুষে গেছে।আমাদের সব পাপ- যদি জীব কোনো পাপ ক’রে থাকে পরস্পরকিংবা দূর নক্ষত্র গুল্ম, গ্যাস, জীবানুর কাছে-হিয়েছে ক্ষয়িত হয়ে।বৃত্ত যেন শুদ্ধতায় নিরুত্তর কেন্দ্রে ফিরে এলএই শান্ত অঘ্রাণের রাতে।যতদূর চোখ যায় বিকোশিত প্রান্তরের কুয়াশায় ব্যাসশাদা চাদরের মত কুয়াশার নিচে শুয়ে!হরিতকী অরণ্যের থেকে চুপে সঞ্চারিত হয়েনিশীথের ছায়া যেন

Read More »

নিঃসরণ

দুর্গের গৌরবে ব’সে প্রাংশু আত্মা ভাবিতেছে টের পূর্বপুরুষের কথাঃযারা তারে জঙ্ঘা দিল,- তবু আজ তরবার পরিত্যাগ করার ক্ষমতাযারা দিল;- প্রাচীন পাথর তারা এনেছিল পর্বতের থেকেস্থির কিছু গড়িবার প্রয়োজনে; তারপর ধূসর কাপড়ে মুখ ঢেকেচ’লে গেছে;- পিছন পেঁচা যা ওড়ে জ্যোৎস্নায়- সেইখানে তাদের মমতা ঘুরিতেছে- ঘুরিতেছে- শত্রু মঙ্গলের মত;- আমার এ শাদা শাটিনেরশেমিজও পেতেছে সেই মনস্বিনী শৃঙ্খলাকে

Read More »

উদয়াস্ত

পৃথিবীতে ঢের দিন বেঁচে থেকে যখন হয়েছে পূর্ণ সময়ের অভিপ্রায়-আগাগোড়া জীবনের দিক চেয়ে কে আবার আয়ু চায়?যদিও চোখের ঘুম ভুলে গিয়ে মননের অহঙ্কারে চর্বি জ্বালায় অপ্রেমিক, কোনো কিছু শেষ সত্য জেনে নেবে বিষয়ের থেকে।তবু কোনো জাদুকর পুরানো স্ফটিক তার যায় নাই রেখে।সময় কাটাতে হয় ব্যবহৃত হস্তাক্ষরে চীবরের ছায়াপাত দেখে। অথবা উদ্রিক্ত যারা হয় নাক’- চিরকাল

Read More »

প্যারাডিম

সময়ের সুতো নিয়ে কেটে গেছে ঢের দিনএক আধবার শুধু নিশিত ক্ষমতাএনেছিল,- তারপরে নিভে- মিশে গেছে;হৃদয় কাটাল কান।বালুঘড়ি ব’লে গেলঃ সময় রয়েছে ঢেরসেই সুর দূর এক আশ্চর্য কক্ষেরচোখের ভিতরে গিয়ে স্বর্ণ দীনারেরঅমোঘ বৃত্তের মত রূপ নিয়ে নড়ে।বালুঘড়ি ব’লে গেলঃ সময় রয়েছে ঢেরসময় রয়েছে ঢের ইহাদের- উহাদের;সমুদ্রের বালি আর আকাশের তারার ভিতরেচ’লেছে গাধার পিঠ- সিংহ, মেষ, বিদূষ্ক,মূর্খ

Read More »

কেন মিছে নক্ষত্রেরা

কেন মিছে নক্ষত্রেরা আসে আর? কেন মিছে জেগে ওঠে নীলাভ আকাশ?কেন চাঁদ ভেসে ওঠেঃ সোনার ময়ূরপঙ্খী অশ্বত্থের শাখার পিছনে?কেন ধুলো সোঁদা গন্ধে ভরে ওঠে শিশিরের চুমো খেয়ে- গুচ্ছে গুচ্ছে                                    ফুটে ওঠে কাশ?খঞ্জনারা কেন নাচে? বুলবুলি দুর্গাটুনটুনি কেন ওড়াওড়ি করে                                            বনে বনে?আমরা যে কমিশন নিয়ে ব্যস্ত- ঘাটি বাঁধি- ভালিবাসি নগর ও                                         বন্দরের শ্বাসঘাস যে বুতের নীচে ঘাস শুধু-

Read More »

অনিবার

যেখানে রয়েছে আলো পাহাড় জলের সমবায়-তবুও সেখানে যদি আবিষ্কার করি প্যারাফিনঅনেক মাটির নীচে,- অথবা সেখানে যদি সংগ্রাম-বিলীনঅজস্র অস্পষ্ট মুণ্ড অনুকম্পা হৃদয়ে জাগায়,তাহ’লে প্রভাত এলে মনিয়া পাখিরা পিছে কি করে’ বালকভেসে যাবে উজ্জ্বল জলবিম্বের মত হেসে?কি ক’রে বা নাগরিক নিজের নারীকে ভালোবেসেজেনে নেবে হেমন্তের সন্ধ্যার আলোকেগ্যাস আর নক্ষত্রের লিপ্সা থেকে জেগেযারা চায় তাহাদের কাছে তবু স্মিত

Read More »

নির্দেশ

জীর্ণ শীর্ণ মাকু নিয়ে এখন বাতাসেতামাসা চালাতে আছে পুনরায় সময় একাকী।তবুও সে ভোরবেলা হরিয়াল পাখিধূসর চিতল মাছে- নির্ঝরের ফাঁসেখেলা ক’রে কাকে দিয়েছিল তবে ফাঁকি?বসন্তবউরী দুটো এই ব’লে হা-হা ক’রে হাসে। সেই হাসি জ্ব’লে ওঠে নির্ঝরের পরে;গড়ায়ে গড়ায়ে গোল নুড়িউজ্জ্বল মাছের সাথে ভোরের নির্ঝরেসময়ের মাকুটাকে করে দিল উড়্‌খুড়্‌ খুড়ি।বিরক্ত সময় তাই খুঁজে নিতে গেল কোন বিষয়ান্তরেনিজের

Read More »

রাত্রি (আলোপৃথিবী)

অইখানে কিছু আগে- বিরাট প্রাসাদে- এক কোণেজ্ব’লে যেতেছিল ধীরে এক্‌সটেন্‌শন্‌ লেকচারের আলো।এখন দেয়ালে রাত- তেমন ততটা কিছু নয়;পথে পথে গ্যাসলাইট র’য়েছে ঝাঁঝালোএখনো সূর্যের তেজ উপসংহারের মত জেগে।এখনো টঙ্গে চ’ড়ে উপরের শেলফের থেকেবই কি বিবর্ণ কীট- ধুলো- মাকড়সা বার হবেদোকানের সেলস্‌ম্যান চুপে ভেবে দেখে।এখনো নামেনি সেই নির্জন রিকশগুলো- নিয়ন্তার মত,সমূহ ভীড়ের চাপে র’য়েছে হারায়ে।অজস্র গলির পথে

Read More »

গতিবিধি

সর্বদাই প্রবেশের পথ র’য়ে গেছে;এবং প্রবেশ ক’রে পুনরায় বাহির হবার;-অরণ্যের অন্ধকার থেকে এক প্রান্তরের আলোকের পথে;প্রান্তরের আলো থেকে পুনরায় রাত্রির আঁধারে;অথবা গৃহের তৃপ্তি ছেড়ে দিয়ে নারী, ভাঁড়, মক্ষিকার বারে। এই সব শরীরের বিচরণ।ঘুমায়ে সে যেতে পারে।(সচেতন যাত্রার পথ তবু আরো প্রসারিত।আলো অন্ধকার তার কাছে কিছু নয়।)উট পাখি সারাদিন দিবারৌদ্রে ফিরেবালির ভিতরে মাথা রেখে দিয়ে আপনার

Read More »