রফিক আজাদ

রফিক আজাদ

  • নত হও, কুর্নিশ করো __রফিক আজাদ

    হে কলম, উদ্ধত হ’য়ো না, নত হও, নত হতে শেখো,তোমার উদ্ধত আচরনে চেয়ে দ্যাখো, কী যে দু:খপেয়েছেন ভদ্রমহোদয়গণ, অতএব, নত হও, বিনীত ভঙিতে করজোড়েক্ষমা চাও, পায়ে পড়ো, বলো: কদ্যপি এমনটি হবে না, স্যার,বলো: মধ্যবিত্ত হে বাঙালী ভদ্রমহোদয়গণ,এবারকার মতো ক্ষমা করে দিন… হে আমার প্রিয় বলপেন, দ্যাখো , চোখ তুলে তোমার সামনেকেমন সুন্দর সুবেশ পরিপাটি ভদ্রলোক খুব অভিমানেফুলো-গালে দাঁড়িয়ে…

    Read More »
  • নগর ধ্বংসের আগে __রফিক আজাদ

    নগর বিধ্বস্ত হ’লে, ভেঙ্গে গেলে শেষতম ঘড়িউলঙ্গ ও মৃতদের সুখে শুধু ঈর্ষা করা চলে।‘জাহাজ, জাহাজ’ – ব’লে আর্তনাদ সকলেই করি –তবুও জাহাজ কোনো ভাসবে না এই পচা জলে। সমুদ্র অনেক দূর, নগরের ধারে-কাছে নেই :চারপাশে অগভীর অস্বচ্ছ মলিন জলরাশি।রক্ত-পুঁজে মাখামাখি আমাদের ভালবাসাবাসি;এখন পাবো না আর সুস্থতার আকাঙ্খার খেই। যেখানে রয়েছো স্থির – মূল্যবান আসবাব, বাড়ি;কিছুতে প্রশান্তি তুমি এ-জীবনে…

    Read More »
  • চুনিয়া আমার আর্কেডিয়া __রফিক আজাদ

    স্পর্শকাতরতাময় এই নামউচ্চারণমাত্র যেন ভেঙে যাবে,অন্তর্হিত হবে তার প্রকৃত মহিমা,-চুনিয়া একটি গ্রাম, ছোট্ট কিন্তু ভেতরে-ভেতরেখুব শক্তিশালীমারণাস্ত্রময় সভ্যতার বিরুদ্ধে দাঁড়াবে। মধ্যরাতে চুনিয়া নীরব।চুনিয়া তো ভালোবাসে শান্তস্নিগ্ধ পূর্ণিমার চাঁদ,চুনিয়া প্রকৃত বৌদ্ধ-স্বভাবের নিরিবিলি সবুজ প্রকৃতি;চুনিয়া যোজনব্যাপী মনোরম আদিবাসী ভূমি।চুনিয়া কখনো কোনো হিংস্রতা দ্যাখেনি।চুনিয়া গুলির শব্দে আঁতকে উঠে কি?প্রতিটি গাছের পাতা মনুষ্যপশুর হিংস্রতা দেখে না-না ক’রে ওঠে?– চুনিয়া মানুষ ভালোবাসে। বৃক্ষদের সাহচার্যে…

    Read More »
  • যাও, পত্রদূত __রফিক আজাদ – বাংলা কবিতা

    যাও পত্রদূত, বোলো তার কানে-কানে মৃদু স্বরেসলজ্জ ভাষায় এই বার্তা: “কোমল পাথর, তুমিসুর্যাস্তের লাল আভা জড়িয়ে রয়েছো বরতনু;প্রকৃতি জানে না নিজে কতোটা সুন্দর বনভূমি।”যাও, বোলো তার কানে ভ্রমরসদৃশ গুঞ্জরণে,চোখের প্রশংসা কোরো, বোলো সুঠাম সুন্দরশরীরের প্রতি বাঁকে তার মরণ লুকিয়ে আছে,অন্য কেউ নয়, সে আমার আকণ্ঠ তৃষ্ণার জল:চুলের প্রশংসা কোরো, তার গুরু নিতম্ব ও বুকসবকিছু খুব ভালো, উপরন্তু, হাসিটি…

    Read More »
  • ভাত দে হারামজাদা – রফিক আজাদ

    ভীষণ ক্ষুধার্ত আছিঃ উদরে, শরীরবৃত্ত ব্যেপেঅনুভূত হতে থাকে- প্রতিপলে- সর্বগ্রাসী ক্ষুধাঅনাবৃষ্টি- যেমন চৈত্রের শষ্যক্ষেত্রে- জ্বেলে দ্যায়প্রভুত দাহন- তেমনি ক্ষুধার জ্বালা, জ্বলে দেহদু’বেলা দু’মুঠো পেলে মোটে নেই অন্য কোন দাবীঅনেকে অনেক কিছু চেয়ে নিচ্ছে, সকলেই চায়ঃবাড়ি, গাড়ি, টাকা কড়ি- কারো বা খ্যাতির লোভ আছেআমার সামান্য দাবী পুড়ে যাচ্ছে পেটের প্রান্তর-ভাত চাই- এই চাওয়া সরাসরি- ঠান্ডা বা গরমসরু বা দারুণ…

    Read More »
  • প্রতীক্ষা – রফিক আজাদ

    এমন অনেক দিন গেছে আমি অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় থেকেছি, হেমন্তে পাতা-ঝরার শব্দ শুনবো ব’লে নিঃশব্দে অপেক্ষা করেছি বনভূমিতে- কোনো বন্ধুর জন্যে কিংবা অন্য অনেকের জন্যে হয়তো বা ভবিষ্যতেও অপেক্ষা করবো… এমন অনেক দিনই তো গেছে কারো অপেক্ষায় বাড়ি ব’সে আছি- হয়তো কেউ বলেছিলো, “অপেক্ষা ক’রো একসঙ্গে বেরুবো।” এক শনিবার রাতে খুব ক্যাজুয়ালি কোনো বন্ধু ঘোরের মধ্যে গোঙানির মতো উচ্চারণ করেছিলো,…

    Read More »
  • তোমার কথা ভেবে __রফিক আজাদ

    বাংলা কবিতা June 10, 2017 রফিক আজাদ 161 Views তোমার কথা ভেবে রক্তে ঢেউ ওঠে—তোমাকে সর্বদা ভাবতে ভালো লাগে,আমার পথজুড়ে তোমারই আনাগোনা—তোমাকে মনে এলে রক্তে আজও ওঠেতুমুল তোলপাড় হূদয়ে সর্বদা…হলো না পাশাপাশি বিপুল পথ-হাঁটা,এমন কথা ছিল চলব দুজনেইজীবন-জোড়া পথ যে-পথ দিকহীনমিশেছে সম্মুখে আলোর গহ্বরে…। 2017-06-10 Check…

    Read More »
  • যদি ভালবাসা পাই – রফিক আজাদ

    বাংলা কবিতা June 10, 2017 প্রেমের কবিতা, ভালোবাসার কবিতা, রফিক আজাদ 1,052 Views যদি ভালবাসা পাই আবার শুধরে নেবজীবনের ভুলগুলিযদি ভালবাসা পাই ব্যাপক দীর্ঘপথেতুলে নেব ঝোলাঝুলিযদি ভালবাসা পাই শীতের রাতের শেষেমখমল দিন পাবযদি ভালবাসা পাই পাহাড় ডিঙ্গাবোআর সমুদ্র সাঁতরাবোযদি ভালবাসা পাই আমার আকাশ হবেদ্রুত শরতের নীলযদি ভালবাসা পাই জীবনে আমিও…

    Read More »
  • ভালোবাসার সংজ্ঞা – রফিক আজাদ

    বাংলা কবিতা June 10, 2017 প্রেমের কবিতা, ভালোবাসার কবিতা, রফিক আজাদ, রোমান্টিক কবিতা 1,707 Views ভালোবাসা মানে দুজনের পাগলামি,পরস্পরকে হৃদয়ের কাছে টানা;ভালোবাসা মানে জীবনের ঝুঁকি নেয়া,বিরহ-বালুতে খালিপায়ে হাঁটাহাঁটি; ভালোবাসা মানে একে অপরের প্রতিখুব করে ঝুঁকে থাকা;ভালোবাসা মানে ব্যাপক বৃষ্টি, বৃষ্টির একটানাভিতরে-বাহিরে দুজনের হেঁটে যাওয়া;ভালোবাসা মানে ঠাণ্ডা কফির পেয়ালা সামনেঅবিরল কথা…

    Read More »
  • স্নান করে উঠে কতক্ষণ __জয় গোস্বামী

    স্নান করে উঠে কতক্ষণঘাটে বসে আছে এক উন্মাদ মহিলা মন্দিরের পিছনে পুরনোবটগাছ। ঝুরি।ফাটধরা রোয়াকে কুকুর। অনেক বছর আগে রথের বিকেলেনৌকো থেকে ঝাঁপ দিয়ে আর ওঠেনি যে-দস্যি ছেলেটাএতক্ষণে, জল থেকেসে ওঠে, দৌড় মারে, ঝুরি ধরে খুব দোল খায়সারা গা শ্যাওলায় ভরা, একটা চোখ মাছে খেয়ে গেছে কেউ তাকে দেখতে পায় না, মন্দিরের মহাদেবও ঢুলছে গাঁজা খেয়েসেই ফাঁকে, এরকম দুপুরবেলায়–সে…

    Read More »
Back to top button
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker